top of page

ছোলা মিশালী | Chola Makha



সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি চারিদিক মেঘলা মেঘলা, ঝির ঝির করে বৃষ্টি পরেই চলেছে | হঠাৎ দরজায় নক | দরজা খুলে দেখি ভাই, ভাইয়ের বৌ, ভাইয়ের ছেলে | ভীষণ আনন্দের এক চমক | সবার মন আনন্দে একেবারে ভরে গেলো | তাড়াতাড়ি ঠিক করে নিলাম ওদের জন্য সকালের মেনু, দুপুরের মেনু | আর ভাবলাম বিকেলে খাওয়াবো ছোলা মিশালী (Chola Makha).......একটু হালকা, কিন্তু খেতে বেশ টেস্টি | এই ওয়েদারে ভালোই লাগবে |


ভাইয়ের বৌ শুনেই তো একেবারেই লাফিয়ে উঠলো.........বললো, খুব দারুন হবে দিদি | আর আমিও সঙ্গে সঙ্গে ২০০ গ্রাম মতো ছোলা একটা পাত্রে জলে ভিজিয়ে রাখলাম | সকালের জলখাবার শেষ হলো, দুপুরের খাওয়াও খুব মজা করেই শেষ হলো | সবাই বিশ্রাম নেওয়ার পর, বিকেলে ছোলা মিশালী তৈরী করতে রান্নাঘরে ঢুকে পড়লাম |


উপকরণ :-

  • ছোলা - ২০০ গ্রাম

  • পেঁয়াজ - ২টি ছোট সাইজের (মিহি করে ডুমো ডুমো করে কুচানো)

  • টমেটো - ২টি ছোট সাইজের (মিহি করে ডুমো ডুমো করে কুচানো)

  • কচি শশা - ২টি ছোট সাইজের (মিহি করে ডুমো ডুমো করে কুচানো)

  • কাঁচা লঙ্কা - ২,৩টি গোটা আর ২,৩টি কুচানো

  • পাতি লেবু - ১টি

  • বিট নূন - প্রয়োজন মতো

  • সর্ষের তেল - ২,৩ চামচ

  • নূন - খুব সামান্য


পদ্ধতি :-


গ্যাসে কড়াই বসিয়ে ২,৩ চামচ তেল দিলাম | তেল গরম হলে, জল থেকে ছেঁকে নিয়ে ছোলা গুলো কড়াইতে দিয়ে দিলাম | দিলাম সামান্য নূন আর ৩টি কাঁচা লঙ্কা ২ ভাগে ভাগ করা | সমস্ত উপকরণ বেশি আঁচে নাড়তে লাগলাম | ছোলা ভাজা ভাজা হলেই গ্যাস বন্ধ করে দিলাম |


এবার প্রত্যেকের জন্য তৈরী করলাম ছোলা মিশালী (Chola Makha) | পাত্রে দিলাম --- এক হাতা পরিমাণ ভাজা ছোলা, কিছুটা টমেটো কুচি, পেঁয়াজ কুচি, কাঁচা লঙ্কা কুচি আর শশা কুচি | ওপরে ছড়িয়ে দিলাম ৩,৪ ফোটা লেবুর রস আর প্রয়োজন মতো বিট নূন | ভালো করে মিশালী নেড়ে নিলাম |


এবার মিশালীর পাত্রে একটা করে চামচ রেখে প্রত্যেকের কাছে মিশালী এগিয়ে দিলাম | সবার মুখ চোখ খুশিতে ভরা ভরা | সবাই একেবারে আনন্দে উৎফুল্ল | বললো বড়ই সুন্দর স্বাদের আর ভীষণ তাকতাক হয়েছে | মন ভরে গেলো গো |


মন আমারও ভরে গেলো আনন্দে | আর আপনারা ? থাকবেন আনন্দে, খুশিতে, সুস্থ হয়ে আর একবার অবশ্যই খেয়ে দেখবেন ছোলা মিশালী (Chola Makha) |



42 views0 comments

Comments


bottom of page