top of page

পোস্ত - ছিটিয়ে - চরাই - শাক - ভাজা


চরাই শাক ---- গ্রাম বাংলার মাঠে ঘাটে প্রচুর পরিমাণে হয়ে থাকে | যখন কর্মসূত্রে গ্রামে ছিলাম, রাস্তা দিয়ে হেটে যেতে যেতে দেখতাম কোনো বয়স্ক মহিলা বা কোনো ঘরের বৌ বা বাচ্চা বাচ্চা মেয়েরা খুব খুশি খুশি মনে চরাই শাকের ডগা ভেঙে ভেঙে তাদের ঝুড়িতে রাখছে|


আসলে ভাতের সঙ্গে এই শাকই তাদের দুপুরের মেনু | তাদের মুখে চোখে তৃপ্তি আর আনন্দ দেখে আমার মন যেন তৃপ্তিতে ভরে যেত |


খুব ইচ্ছে করতো ওদের মতো চরাই শাক ভাজা দিয়ে ভাত খেতে | তারপর বহুবার আমার প্রিয় চরাই শাক ভাজা দিয়ে ভাত খেয়েছিও |


আজ আমার রান্নাঘরে রয়েছে দু আঁটি চরাই শাক | ভালো করে বেছে আর কুচিয়ে নিয়ে জলে ভিজিয়ে দিলাম | ভাবলাম পোস্ত ছিটিয়ে ভাজবো.......মুখরোচক হবে |


যেকোনো শাকই পোস্ত ছিটিয়ে এভাবে ভাজা যাবে |

উপকরণ :-

  • চরাই শাক - ২ আঁটি

  • পোস্ত - ২,৩ চামচ

  • কাঁচা লঙ্কা - ৩,৪টি চেরা

  • গোটা শুকনো লঙ্কা - ২টি

  • পাঁচ ফোড়ন - ১/২ চামচ

  • হলুদ - ১/২ থেকে ১ চামচ

  • নূন - প্রয়োজন মতো

  • চিনি - কয়েকদানা (অবশ্যই লাগবে স্বাদের জন্য)

  • সর্ষের তেল - ২,৩ চামচ (প্রয়োজন মতো)

পদ্ধতি :-


গ্যাসে কড়াই চাপিয়ে দিলাম | কড়াই গরম হলে, পোস্তদানা গুলো কড়াইতে দিয়ে নেড়েনেড়ে মুচমুচে করে তুলে রাখলাম | এবার কড়াইতে তেল দিলাম | দিলাম পাঁচ ফোড়ন আর শুকনো লঙ্কা আর জলে ধোয়া কুচানো চরাই শাক | আরো দিলাম, হলুদ, নূন ও কয়েকদানা চিনি |

একটু নেড়ে নিয়ে আঁচ কমিয়ে ঢাকা দিয়ে হতে দিলাম | শাকক থেকে জল বেরহয়েই শাক সেদ্ধ হয়ে গেলো | জল শুকিয়ে এলে ঢাকা খুলে দিলাম চেরা কাঁচা লঙ্কা গুলো |


আঁচ বাড়িয়ে বারবার নাড়তে লাগলাম | ভাজা ভাজা হয়ে এলে, শাকের স্বাদও চেখে নিলাম আর গ্যাস বন্ধ করে শাক ভাজা একটু ছড়ানো পাত্রে ঢেলে নিলাম | ওপরে ছড়িয়ে দিলাম শুকনো কড়াইয়ে মুচমুচে করে ভাজা পোস্তদানা গুলো |


গরম ভাতে প্রথম পাতে পোস্ত ছিটানো চরাই শাক ----- সুন্দর স্বাদে মুখ ভরে গেলো আর সবাই বললো ওহঃ....বড্ডো ভালো | আপনারাও ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন আর থাকুন অনেক অনেক অনেক আনন্দে |



32 views0 comments

Comentarios


bottom of page