top of page

কামরাঙ্গার - গুড় - চাটনি


শেষের পাতে এক ফোঁটা চাটনি পরিপাটি ! খাওয়ার স্বাদে আনবে বয়ে খুশির জমজমাটি !! সত্যিই ....যতই জমিয়ে খাওয়া - দাওয়া হোক না কেনো , শেষ পাতে একটু রসালো চাটনি না থাকলে ,খাওয়াটা কেমন যেনো সম্পূর্ণ জমে ওঠে না | আমরা তো সময়ে সময়ে মজাদার - চটপটে স্বাদে ভরপুর ,নানা রকমের চাটনি আমাদের পাতে এনে ফেলি , আর শেষ পাতে রসিয়ে রসিয়ে খেয়ে - দেয়ে ,খাওয়ার মজাটা সম্পূর্ণ করে ফেলি | মোট - কথা মধ্যাহ্ন ভোজের পাতে আমাদের সব্বাইয়ের চাটনি চাই চাই |


আজ আমার বাজারের থলিতে অনেক অনেকদিন বাদে ৩-৪টে কামরাঙ্গা | বাঃ ! .....মনটা একেবারে খুশি খুশি হয়ে গেলো | অবশ্যই চাটনি তো রাঁধবোই ,তবে আজ গুড় দিয়ে কামরাঙ্গার চাটনি বানাবো | ভীষণ ভীষণ টেস্টি টেস্টি হয় | কামরাঙ্গার - গুড় - চাটনি ........কেমন যেনো এক স্পেশাল চটপটা স্বাদে মনটা এক লোভনীয় আনন্দে ভরিয়ে দেয় | একবার একটু খেলেই ,মন বলে আর একটু খাই ....আর একটু খাই ......আ .......র এক.......টু ...........


গুড় ! আঁখের গুড় ! বড়োই উপকারী | লিভার কে তো ভালো রাখেই ,লিভারের কর্মক্ষমতাও অনেক বাড়িয়ে দেয় | ঘাম - জর্জরিত গরমে শরীরে স্বস্তি আনতে এক - গ্লাস ঠান্ডা আঁখের গুড়ের শরবতের বোধহয় কোনোই তুলনা হয় না | পেট ঠান্ডা - শরীর ঠান্ডা - আর তাই তো অত্যাধিক গরমে মনও ঠান্ডা ঠান্ডা |


যাহোক বাড়িতে তো গুড় আনাই আছে | আর উপকরণ ও তো যৎসামান্য | তাই গুড় দিয়ে কামরাঙ্গার চাটনি তৈরিতে কোনো বাধাই নেই | তাছাড়া একটু তাড়াতাড়িই রান্নাটা সেরে ফেলতে হবে | চাটনি তো আবার ঠান্ডা না হলে ,খেয়ে মজা নেই !!


আর স্পেশাল স্বাদে ভরা কামরাঙ্গার তো উপকারের কোনোই শেষ নেই | প্রোটিনে ঠাসা | তাইতো খাবার পাতে মাঝে মাঝে থাকলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও অনেক বেড়ে যায় | ভিটামিন সি - তে ভরপুর ,সেজন্য সর্দি - কাশির হাত থেকেও অনেকটা রক্ষা পাওয়া যায় | স্কিন হয়ে ওঠে চকচকে আর চুল ? .........রেশমের মতো ঝলমলে | তাই আমরা তো মাঝে মধ্যেই কামরাঙাকে আমাদের রান্নাঘরে আনবোই আনবো , আর সবার ভালোর কথা ভেবে , নানা মুখরোচক পদ রেঁধে রেঁধে পৌঁছে দেবো , বাড়ির সদস্যদের পাতে পাতে | আর তাইতো আজ রেঁধে ফেলছি গুড় দিয়ে কামরাঙ্গার টেস্টি টেস্টি চাটনি |


উপকরণ :-


  • কামরাঙ্গা - একটু পাকা ধরণের ৩-৪টি ( পাতলা পাতলা করে কেটে ,জলে ধুয়ে নিয়ে জল ঝরানো )

  • আঁখের গুড় - ১৫০ - ২০০ গ্রামের মতো ( মিষ্টি নিজের ইচ্ছে মতো , কম - বেশি করতেই পারেন )

  • পাঁচফোড়ন - ১/২ চামচ ( ফোরনে দিলেই ,চাটনি সু - গন্ধে ভরে উঠবে )

  • গোটা জিরে - ১-২ চামচ ,ভাজা মশলা তৈরির জন্য

  • গোটা শুকনো লঙ্কা - ৩-৪টি ( ঝাল নিজের নিজের পছন্দ মতো ,এই চাটনি টা একটু টক -টক ,ঝাল -ঝাল ,মিষ্টি - মিষ্টি হলেই কিন্তু মজাদার হয়ে উঠবে , তবে সব কিছুই..........কিছুটা নিজের নিজের পছন্দের )

  • হলুদগুঁড়ো - অল্প ...বা ...১/২ চামচের মতো

  • নুন - প্রয়োজনমতো

  • চিনি - খুব অল্প

  • সর্ষের তেল - প্রয়োজনমতো


পদ্ধতি :-


গ্যাসে কড়াই চাপিয়ে ,কড়াইয়ের মধ্যে দিলাম গোটা জিরে আর ২টো গোটা শুকনোলঙ্কা | আঁচ বাড়িয়ে কমিয়ে শুকনো কড়াইতে গোটা জিরে আর গোটা শুকনোলঙ্কা বার বার নেড়ে নেড়ে মুচমুচে করে ভেজে নিয়ে মিক্সিতে নিয়ে নিলাম | মিক্সি চালিয়ে ভাজা জিরে আর ভাজা শুকনোলঙ্কা ,একটু হালকা হালকা দানা দানা মতন করে গুঁড়িয়ে নিলাম | ভাজা মশলা তৈরি হয়ে গেলো |


আবার গ্যাসে কড়াই চাপিয়ে প্রয়োজনমতো সর্ষের তেল দিলাম | তেল গরম হতেই আঁচ কমিয়ে কড়াইতে দিলাম ১টা ফাটানো গোটা শুকনোলঙ্কা আর ১/২ চামচ পাঁচফোড়ন আর জলে ধুয়ে রাখা ,জল ঝরানো ,কুচানো কামরাঙ্গা | আঁচ বাড়িয়ে একটু নেড়ে নিয়ে দিলাম ,খুব অল্প হলুদগুঁড়ো ,একটু নুন আর একটু চিনি | সর্ষের তেলে একটু চিনি ,রান্নায় এক চকচকে ভাব তৈরি করে দেবে | কড়াইয়ের সমস্ত উপকরণ একসঙ্গে ভালো করে নাড়তে লাগলাম | একটা সুন্দর জিভে জল আনা

গন্ধে আমার রান্নাঘর ভরে উঠলো | ওঃ হো হো দারুন ! খুব ভালো লাগা এক সুগন্ধ | আঁচ কমিয়ে একটা ঢাকা দিয়ে রান্না একটু মজতে দিলাম |


রান্না মজে গেছে মনে হতেই , আঁখের গুড় ভেঙে ভেঙে ছোট ছোট টুকরো টুকরো করে ,কড়াইতে দিয়ে দিলাম | আঁচ বাড়িয়ে গুড় সমেত কড়াইয়ের সমস্ত উপকরণ নেড়ে নিয়ে , কড়াইতে সামান্য পরিমানে জল ছিটিয়ে দিলাম | আবার আঁচ কমিয়ে একটা ঢাকা দিয়ে ,রান্না কিছুক্ষন মজতে দিলাম |গুড় গলে রান্নায় পুরোপুরি মিশে যেতেই ,রান্নায় ভাজা মশলা মিশিয়ে দিলাম | কম আঁচে রান্না আরো একটু হওয়ার পরে রান্না চেখে দেখলাম | আহা হা হা ! কি দারুন চাটনি রেঁধে ফেলেছি ! দারুন হয়েছে | বেশি আঁচে রান্না একটু টানটান করে নিয়ে গ্যাস বন্ধ করে দিলাম | তৈরি হয়ে গেলো অপূর্ব স্বাদের কামরাঙ্গা - গুড়ের লোভনীয় চাটনি |


অনেকদিন বাদে আমাদের মধ্যাহ্ন ভোজের টেবিলের শেষপাত এক স্পেশাল স্বাদে মাখামাখি | আর এই স্পেশাল স্বাদে আমরা সব্বাই ভীষণ ভীষণ খুশি | অনেক খুশি আর অনেক আনন্দের সঙ্গে আমাদের খাওয়া - দাওয়া শেষ হলো | সবার ইচ্ছা .....খুব তাড়াতাড়ি ...আরো একদিন আমাদের রান্নাঘরে, আবার তৈরি হবে কামরাঙ্গা - গুড়ের মুখরোচক চাটনি ......


জমিয়ে খান | মজা করে - আনন্দ করে করুন খাওয়া - দাওয়া | আনন্দে থাকুন | ভালো থাকুন | আর অনেক অনেক সুস্থ থাকুন |




10 views0 comments

Comentários


bottom of page