top of page

খাসির -মাংসের - ঝোল

Updated: Mar 17, 2022


কাল হঠাৎ...ই সারা রাত মুসল ধারে বৃষ্টি হওয়ায় ,আজকের সকালটা একদম অন্যরকম ....বড়োই সুন্দর | | খুব সুন্দর একটা ঠান্ডা ঠান্ডা ওয়েদার | রান্নাবান্নার কথা ভাবতে গিয়ে মনে হলো , অনেক দিন বাড়িতে মাংস রান্না হয়নি | ভেবেই ফেললাম , আজ এই সুন্দর ওয়েদারে মুখের স্বাদ পাল্টাতে, দুপুরে রাঁধবো মাংসের dhঝোল | সব্বার ভালো লাগবে |

আমরা যারা খাসির মাংস খুব খুব পছন্দ করি ,তাদের কাছে স্বাদগুণে খাসির মাংস কিন্তু সত্যি সত্যিই স্পেশাল | অনেক অনেক বাঙালির রান্নাঘরে উঁকি মারলেই দেখা যাবে,প্রতি সপ্তাহের রবিবারে ,ছুটির দিনটাতে জমিয়ে রান্না হয় খাসির মাংস ......আর অবশ্যই জমিয়ে খাওয়া দাওয়া তো হয়ই -হয় |গরম গরম ভাত আর সঙ্গে গরম গরম মাংসের ঝোল .....আহা ! ....হা ! ....হা ! .......ভাবলেই যেন জিভে জল .....!!!


আর গ্রামে - গঞ্জে ?......খাসি -ভাত ...মানে মাংস - ভাত ....তাদের সবচাইতে প্রিয় মেনু | যে কোনো আনন্দ অনুষ্ঠানে তাদের খাসি - ভাত চাই - চাই | যতই স্পেশাল স্পেশাল মেনু রান্না হোক না কেন ........খাসি - ভাত ছাড়া ...কোনো অনুষ্ঠানের আনন্দই যেনো সম্পূর্ণ হয় না | তাদের আনন্দ দেখে মনে হয় .....রোজ রোজ খাসি - ভাত হলেও ..........তাদের বোধহয় আপত্তি নাও থাকতে পারে |


যথারীতি বাজার থেকে মাংস আনিয়ে নিয়েছি আর বাকি সব উপকরণও জোগাড় করে ফেলেছি | তাই সকালের জল - খাবারের পাট চুকিয়ে নিয়ে ...মাংস রান্না শুরু করতে আর দেরি করলাম না |


রান্না শুরু হলো .....................................................................



উপকরণ :-

  • খাসির মাংস - ১২০০ গ্রাম

  • আলু - ৬-৭টি মাঝারি সাইজের (খোসা ছাড়িয়ে আড়াআড়ি করে কাটা.. ১টা আলু ৪ টুকরো করেও মাংসের ঝোলে দেওয়া যেতে পারে ,আবার ইচ্ছা হলে নাও দিতে পরেন )

  • তেজপাতা - ২টি

  • টমেটো - ১টি মাঝারি সাইজের (টুকরো টুকরো করে কাটা)

  • পেঁয়াজ - ৮-১০ টা মতো ,ছোট ছোট সাইজের আর খুব মিহি করে কুচানো

  • আদা বাটা - ৩-৪ চামচ

  • রসুন বাটা -৩-৪ চামচ

  • কাঁচা লঙ্কা বাটা - ৪-৫ চামচ ,গোটা ৪-৫টি

  • হলুদ - ৩ - ৩.৫ চামচ

  • জিরে গুঁড়ো - থেকে চাম

  • লঙ্কা গুঁড়ো - ২,৩ চামচ (ঝাল নিজের নিজের মতো)

  • গরম মশলা - ১/২ থেকে ১ চামচ

  • ঘি - ১ থেকে ১.৫ চামচ

  • নূন - প্রয়োজন মত

  • চিনি - সামান্য (কিন্তু লাগবেই রান্নার বিশেষ স্বাদ ও রঙের জন্য)

  • সর্ষের তেল - প্রয়োজন মতো

  • (ধোনে গুঁড়ো - ইচ্ছে হলে খুব সামান্য দিতে পারেন | আজকের মাংসের ঝোলে আমি কিন্তু দিইনি )

পদ্ধতি :-


মাংস হালকা করে ধুয়ে, নূন ও ৪-৫ চামচ সর্ষের তেল দিয়ে, ভালো করে মেখে নিয়ে একটা ঢাকা দিয়ে রাখলাম | গ্যাস জ্বালিয়ে কড়াই চাপলাম | কড়াইতে ৩-৪ চামচ মতো তেল দিলাম | তেল গরম হলে জলে ধোয়া আলুর টুকরো গুলো কড়াইতে দিয়ে দিলাম | দিলাম এক চিমটে নূন, এক চিমটে হলুদ |



আঁচ বাড়িয়ে কমিয়ে হালকা রাঙা রাঙা করে আলু ভেজে তুলে রাখলাম | এবার মাংসের ঝোলের পরিমাণ ভেবে জল গরম করে ঢাকা দিয়ে রাখলাম | কারণ মাংসে সবসময়ে গরম জল দিতেই হবে, তাহলেই মাংস ভালো সেদ্ধ হবে (আমি কিন্তু প্রেসার কুকারে রান্নাটা করছি না ,ইচ্ছে করলে প্রেসার কুকারেও রান্নাটা করা যেতেই পারে |) |


এবার গ্যাসে কড়াই চাপিয়ে গরম হলে প্রয়োজনমতো তেল দিলাম | তেল গরম হলে দিলাম কুচানো পেঁয়াজ গুলো আর ২টি তেজপাতা | পেঁয়াজ ভাজতে ভাজতে একটু নরম হলে, দিলাম আদা বাটা, রসুন বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা | সমস্ত উপকরণ ভালো করে নাড়তে লাগলাম |


এরপর কড়াইতে দিলাম সমস্ত মাংসের মিশ্রণ | আঁচ বাড়িয়ে বেশ কিছুক্ষন নাড়াচাড়া করলাম | আঁচ কমিয়ে, দিলাম ---- নূন, হলুদ, প্রয়োজন মতো চিনি, জিরে গুঁড়ো


আর লঙ্কা গুঁড়ো | এবার আঁচ বাড়িয়ে কমিয়ে ভালো করে কষতে লাগলাম |


কষা মাংসের সুন্দর গন্ধ বেরোলেই আর মশলা থেকে তেল বার হতে শুরু করলেই, ঝোলের পরিমাণ ভেবে মাংসে গরম জল দিলাম | ঝোল ভালো ভাবে ফুটতে থাকলে, আঁচ কমিয়ে একটা ঢাকা দিয়ে রান্না হতে দিলাম |


ঢাকা খুলে মাংস সেদ্ধ হয়েছে কিনা তা দেখতে লাগলাম | মাংস খানিকটা সেদ্ধ হলেই ভাজা আলু গুলো মাংসের ঝোলের মধ্যে দিয়ে দিলাম | এবার বেশি আঁচে দু একবার ভালো করে ফুটিয়ে আবার আঁচ কমিয়ে ঢাকা দিয়ে মাংস মজতে দিলাম |


আলু আর মাংস সুস্বিদ্ধ হয়ে এলে, ঝোলের পরিমাণ ঠিক করে নিলাম আর দেখে নিলাম মাংসের স্বাদ|দিলাম গরম মশলা ও ঘি | ভালো করে নেড়েচেড়ে রান্নার গ্যাস বন্ধ করে দিলাম আর মাংসের ঝোলে একটা ঢাকা দিয়ে রেখে দিলাম |


শুনতে পাচ্ছি সবাই বলাবলি করছে, মাংসের ঝোলের সুন্দর টেস্টি টেস্টি গন্ধে কেমন যেনো একটু তাড়াতাড়িই খিদে খিদে পাচ্ছে | আর অপেক্ষা করাই যাচ্ছে না ...........নাঃ !....নাঃ !...এবার খাবার টেবিলে বসাই যাক |


তরপর..............


সবাই মিলে খুশি খুশি মনে খেলাম গরম গরম ভাত আর গরম গরম মাংসের ঝোল | খুব খুব ভালো লাগলো | রান্নার সুন্দর স্বাদে আর আরামদায়ক আবহাওয়ায় মন যেনো সবার তৃপ্তিতে ভরপুর | দারুন ! ....দারুন ! ......সত্যি সত্যিই আমরা সবাই আজ দুপুরের মেনু দারুন উপভোগ করলাম |


তবে ......সব চাইতে ভালো লাগবে যখন আপনারা সব্বাই খুব খুব ভালো থাকবেন , আনন্দে থাকবেন | আর তার জন্য তো উপভোগ করে ভালো ভালো খেতে হবে | আর ?...আর অনেক অনেক সুস্থ থাকতে হবে |

47 views0 comments

Comentarios


bottom of page