top of page

পলতা - বড়া


খাদ্য - রসিক বাঙালির ভাতের পাতে একটু ভাজাভাজি কিন্তু ভীষণ ভী..... .ষণই প্রিয় | একটু টেস্টি টেস্টি যে কো...নো ভাজা দিয়ে খাওয়া শুরু হলে তো কথাই হবে না | শুরুটা সুন্দর তো শেষটা ও সুন্দর | আর সেই টেস্টি টেস্টি ভাজা হতে পারে কিন্তু যে কোনো মুখরোচক ভাজা ...শাক ভাজা ..বা...নিমপাতা ভাজা ...বা ..যে কোনো টেস্টি টেস্টি বড়া ভাজা ..বা .....| আজ আমার রান্নাঘরে খুব কচি কচি আর একেবারে টাটকা ....২ আঁটি পলতা পাতা | আমি ভাজবো মুচমুচে করে পলতা পাতার বড়া | গরম গরম ভাতে ....খাওয়ার শুরুতে একেবারে দারুন ! .....দারুন হবে !



গ্রীষ্মকালের সবার পরিচিত আর সবার রান্নাঘরে প্রায় রোজই দেখা যায় এক সবুজে ভরা সবজি | সব্জিটা হলো পটল | নানা ভাবে আমরা পটোলের নানা মেনু তৈরি করেই থাকি | আর এই পটল গাছের ...একটু খসখসে পাতাগুলোকেই আমরা পলতা পাতা বলি | স্বাদে অল্প তিতকুটে ......কিন্তু খেতে অসাধারণ |অরুচি মুখে রুচি আনতে.....বোধহয় এর তুলনা মেলাই ভার | পলতা পাতার বাটি - চচ্চড়ি , পলতার - শুক্ত . পাঁচমিশালি তরকারি .....আর নানা ধরণের বড়া ....কখনো মুসুরডালের সঙ্গে ,কখনো মটরডালের সঙ্গে ..বা ..কখনো অন্যভাবে | স্বাদ - বদলে পলতার সব রান্নাই খাবার পাতের রাজা |


বাজারের থলিতে আজ হঠাৎ ২ আঁটি পলতা পাতা দেখে মন সত্যিই খুশিতে ভরে গেছে | বর্ষা - ভেজা দুপুরে গরম গরম পলতা পাতার বড়া দিয়ে ....গরম ভাতে খাওয়ার শুরুটা হবে যেমন স্বাদিষ্ট তেমনি মজাদার | ভাবলাম আজ বেসন আর চালের গুঁড়ো দিয়ে মুচমুচে পলতার বড়া ভেজে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেবো | খুব আনন্দ হচ্ছে | সবার খুশিই ....যে আমার ও খুশি |



প্রকৃতির কোলে জন্মানো সমস্ত শাক - সবজি ,ভেষজ উদ্ভিদ ...নানা খাদ্যগুণে - ঔষধীগুনে ভরপুর | পলতা পাতা ও আমাদের শরীরের জন্য বড়োই উপকারী | স্বাদ - বদলে তো পলতা রাজার রাজা , তার উপর পেট ভালো রাখতে ,রক্ত পরিশ্রুত করতে ,ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ রাখতে ......আরো নানা নানা ভাবে আমাদের শরীরকে ভালো রাখতে ও সাহায্য করে | তাই এই ধরণের উপকারী সবজি .....মাঝে মাঝে আমাদের রান্নাঘরে দেখা গেলে .........বেশ ভালোই লাগে | মেনুতে মাঝে মাঝে চমক তো চা ........ ই .....চাই .......শরীর -মন ভালো রাখতে ........


ভাবতে ভাবতে খেয়াল করলাম .....বেলা তো বেশ গড়িয়েই চলেছে .....এবার দুপুরের রান্নাবান্না শুরু করতেই ভাবে | আর সব রান্নার শেষে ভাজবো ....আমার প্রিয় পলতার মুচমুচে বড়া | দুপুরের খাওয়া শুরু হবে গরম ভাতে ....গরম মুখরোচক পলতা - বড়া দিয়ে | আহা..হা ..হা ভাবলেই কিন্তু বেশ ভালো লাগছে |



উপকরণ :-


  • পলতা পাতা - ২ আঁটি ( সুন্দর করে বেছে নিয়ে জলে ভেজানো ),

  • কাঁচালঙ্কা বাটা - ২ চামচ

  • রসুন বাটা - ১- ১.৫ চামচ

  • আদা বাটা - চায়ের চামচের ৪ ভাগের ১ ভাগ , খুবই সামান্য ( ইচ্ছে না হলে ,নাও দেওয়া যেতে পারে )

  • বেসন - ১০০ গ্রামের মতো

  • চালের গুঁড়ো - ৩-৪ চামচ

  • নুন - প্রয়োজনমতো

  • চিনি - প্রয়োজনমতো

  • সাদা তেল - প্রয়োজনমতো ( ভাজার জন্য )


পদ্ধতি :-


উপকরণ তো ....খুবই সাধারণ উপকরণ , কিন্তু এই উপকরণ দিয়ে তৈরি মুচমুচে পলতা - বড়া .....অসাধারণ ! সব রান্না শেষ ...শুধু বাকি আজকের মুচমুচে পলতার বড়া |পলতাপাতা গুলো বেছে নিয়ে জলে ভিজিয়েই রেখেছিলাম ,এখন একটা পাত্রে বেসন নিয়ে প্রয়োজনমতো জল দিয়ে ভিজিয়ে নিলাম |বেশ ঘন ঘন করে বেসনের লেই তৈরি করে নিয়ে খানিকক্ষণ ভালো করে ফেটিয়ে রাখলাম |



এবার মিক্সিতে সব বাটা গুলো তৈরি করে নিয়ে ,একে একে প্রয়োজনমতো বেসনের পাত্রে দিয়ে দিলাম |দিলাম চালের গুঁড়ো আর প্রয়োজনমতো নুন ...আর ? .....আর চিনি | চিনি অবশ্যই দিতে হবে | না - হলে তো পলতার বড়া টেস্টি টেস্টি হবেই না | একটু কোসো কোসো আর তিতকুটে খাদ্য উপাদানকে সুস্বাদু করে তুলতে ..এক চিমটে চিনির কার্যকারিতা ...অসাধারণ | এইবার হাত দিয়ে সমস্ত উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে নিতে লাগলাম | সব ভালোমতো মিশে গেলে .....অবশ্যই মিশ্রনের স্বাদ চেখে নিলাম |


বাহঃ দারুন | বেশ তাক তাক হয়েছে | এবার জলে ভেজা পলতা পাতাগুলো জল ঝরিয়ে তুলে নিলাম |হাত দিয়ে পাতাগুলো একটু কুচি কুচি করে ফেটানো বেসনের মধ্যে দিয়ে দিলাম | আবার সব

ভালো করে মিশিয়ে নিতে লাগলাম |


বেসন আর পাতাগুলো ভালোমতো মাখো মাখো হয়ে গেলে .....গ্যাসে কড়াই চাপলাম ,দিলাম ভাজার জন্য প্রয়োজনমতো সাদা তেল | তেল গরম হয়ে গেলে আঁচ কমিয়ে বেসন আর পাতার মাখা মাখা মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট বড়ার আকারে গড়ে নিয়ে তেলের মধ্যে ছেড়ে দিলাম | আঁচ বাড়িয়ে দিলাম | বড়াগুলো সুন্দর ভাবে ফুলে ফুলে উঠলো | আঁচ বাড়িয়ে কমিয়ে বড়াগুলো মুচমুচে করে ভেজে তুলে রাখলাম | আর এইভাবেই সব বড়া ভেজে ফেললাম |


দুপুরে খাওয়ার টেবিলে সবার খাওয়া শুরু হলো গরম ভাতে .....মুচমুচে পলতা-বড়া দিয়ে মেখে | স্বাদিষ্ট পলতা - বড়া .... সত্যি আমাদের মনপ্রাণ ভরিয়েই দিলো | খাওয়ার শুরুটা যেনো সুখে - আহ্লাদে মাখামাখি হয়ে গেলো | বাকিটাও মনে হয় জমেই যাবে , দেখা যাক .......................


গ্রীষ্মের অনেক দাবদাহের পর আদরের বর্ষা কে জমিয়ে উপভোগ করুন |সব্বাই ভালো ভালো খাওয়া দাওয়া করুন | থাকুন সুস্থ ,ভালো আর অ.......নেক অনেক আনন্দে |


8 views0 comments

Коментари


bottom of page