top of page

পেঁপে - আলু - ভাজা (Potato - Papaya - Fry)



আমার বাড়ির কাছাকাছি ই আমার এক বন্ধুর বাড়ি | ওদের বাড়িতে ছোট্ট একটা বাগান আছে | ২-১টা বড়ো বড়ো গাছ ও আছে | বাগানে কিছু ফললেই , আমার বাড়িতে ঠি.........ক পৌঁছে যায় | কাল বন্ধু এসেছিলো | আর আমাকে দিয়েও গেছে একটা একটু বড়ো সাইজের পেঁপে | জানে যে আমাদের বাড়ির আমরা সবাই পেঁপে খেতে খুব ভালোবাসি | খুব আনন্দ হলো | একেবারে সবুজ পেঁপে | ভেবেই ফেললাম কাল সুন্দর করে ছোলা দিয়ে পেঁপের ডালনা রাঁধবো | গরম গরম ভাতে দারুন !!


সকাল হলো | সকালের সব কাজ সারাও হয়ে গেছে | কাল রাতে খানিকটা ছোলাও ভিজিয়ে রেখেছি | পেঁপে কাটতে বসে গেলাম |কিন্তু ......ওমা....... !! একী........!! পেঁপের মধ্যে হালকা একটা লাল আভা | যেই পেঁপে বটিতে দুভাগ করেছি .......দেখি পেঁপের এই অবস্থা | ওপর থেকে তো কিছুই বোঝা যাচ্ছে না , কিন্তু ভেতরটা হালকা হালকা লাল | এই পেঁপে দিয়ে ডালনা রান্না করলে , একটু অন্যরকম তো লাগবেই



| ঠিক আছে আজ পেঁপের ডালনা রাঁধছি না | আজ খুব মজাদার করে রাঁধবো 'পেঁপে আলু ভাজি ' | গরম ভাতে প্রথম পাতে.........আহা হা হা , দারুন জমে যাবে | খুবই মুখরোচক ! এই রকমের পেঁপে এইভাবে রান্না করলে খুব ভালো লাগে | মুখ এক স্পেশাল স্বাদে ভরে ওঠে |


অর্ধেকটা পেঁপে ভালো করে খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে পাতলা পাতলা ছোট ছোট চৌকো চৌকো টুকরো করে কেটে জলে ভিজিয়ে দিলাম | নিলাম দুটো , একটু বড়ো সাইজের আলু | আলুগুলো ও ভালো করে খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে , পেঁপের মতোই পাতলা পাতলা ছোট ছোট চৌকো চৌকো টুকরো করে কেটে নিয়ে জলে ভিজিয়ে দিলাম | নিলাম কয়েকটা কাঁচালঙ্কা | কয়েকটা কাঁচালঙ্কা গোটা গোটা রাখলাম , কয়েকটা দুভাগে চিরে নিলাম | লাঞ্চের সব রান্নাই করে ফেলেছি | শুধু পেঁপে - আলু ভাজাই বাকি (Potato - Papaya - Fry) | গরম গরম ভাজবো , আর তারপরই ,প্রথম পাতে পাতে গরম ভাতের সাথে সাথে | বেশ মজাদার হবে , তাই না ?


উপকরণ :-

  • পেঁপে - একটা বড়ো সাইজের পেঁপের অর্ধেকটা

  • আলু - একটু বড়ো সাইজের ২টো

  • কাঁচালঙ্কা - ৭-৮টা

  • গোটা শুকনোলঙ্কা - ৪-৫টি , একটু করে ফাটানো

  • হলুদগুঁড়ো - একেবারে খুব অল্প , বলতে গেলে এ........ক চিমটে

  • নুন - প্রয়োজনমতো

  • চিনি - অবশ্যই প্রয়োজনমতো

  • সর্ষের তেল - প্রয়োজনমতো


পদ্ধতি :-


শুরু করলাম পেঁপে - আলু ভাজা | এতো সহজ রান্না ! উপকরণ ও খুবই কম | কিন্তু এক অসাধারণ টেস্টি টেস্টি মেনু | আর পেঁপে এমন এক উদ্ভিজ রান্নার উপকরণ , যার ঔষধি গুনের কথা হয়তো বলে শেষ করাই যাবে না | পেঁপে নিজে যেমন সহজপাচ্য , তেমনি অন্যান্য রান্নার উপকরণকেও সুসিদ্ধ করে ফেলে , সহজপাচ্য করে তোলে | ছোট - বড়ো , সুস্থ - অসুস্থ সবার পাতেই এর উপস্থিতির প্রয়োজনীয়তা বড়োই বেশি , আর তাইতো আমাদের প্রতিটি রান্না ঘরেই মাঝে মধ্যেই এর আগমন হবেই হবে | যাহোক আর কথা নয় | তাড়াতাড়ি রান্নাটা শুরু করেই ফেলি | লাঞ্চের টাইম তো এগিয়ে এলো বলে |



গ্যাসে কড়াই চাপিয়ে প্রয়োজনমতো তেল দিলাম | তেল গরম হয়ে উঠলে আঁচ কমিয়ে কড়াইতে দিয়ে দিলাম ৪-৫টা ফাটানো লাল শুকনোলঙ্কা আর জল ঝরানো কাটা আলুর টুকরোগুলো | দিলাম এক চিমটে হলুদগুঁড়ো , অল্প নুন আর প্রয়োজনমতো চিনি | আঁচ বাড়িয়ে আলুগুলো নাড়তে লাগলাম | আলুগুলো হালকা লাল লাল মতো হয়ে আসতেই , আঁচ কমিয়ে কড়াইতে দিয়ে দিলাম জল ঝরানো পেঁপের টুকরোগুলো আর চেরা কয়েকটা কাঁচালংকার টুকরো |


আঁচ বাড়িয়ে আবার কড়াইয়ের সমস্ত উপকরণ ভাজতে লাগলাম | আঁচ কমিয়ে একটা হালকা করে ঢাকা দিয়ে ভাজা অল্প......ক্ষন মজতে দিলাম | মজে গিয়েছে মনে হতেই , ঢাকা খুলে আঁচ বাড়িয়ে আবার ভাজা নাড়তে লাগলাম | দিলাম ২-৩টে গোটা

কাঁচালঙ্কা | কয়েকবার নাড়াচাড়ার করার পর , রান্না চেখে নিলাম | খুব সুন্দর লাগছে | বড়োই স্বাদিষ্ট !! গরম ভাতের পাতে জমে তো যাবেই | ভাবতে ভাবতে গ্যাস বন্ধ করে নিয়ে , পেঁপে - আলু ভাজা একটা পাত্রে তুলে নিয়ে লাঞ্চ - টেবিলে পৌঁছে গেলাম (Potato - Papaya - Fry) | বাড়ির সবাই তখন খাবার টেবিলে |


পেঁপে - আলু ভাজা দিয়ে সবাই খাওয়া শুরু করলাম | ভীষণ ভীষণই ভালো লাগছে | কারোর মুখে কোনো কথা নেই | সবার মন যেন শুধুই খাওয়ার দিকে | আমাদের মধ্যে কয়েকজন তো গরম গরম পেঁপে - আলু ভাজা দিয়ে পুরো ভাত টাই খেয়ে ফেললাম | দ্বিতীয় আর কোনো মেনুর দরকারই পড়লো না | সবাই আমরা দারুন দারুন খেলাম | স্বাদের খুশিতে আমাদের মন গুলো ও যেনো খুশি খুশি |


খুশিতে থাকুন | ভালো থাকুন | সুস্থ থাকুন |

3 views0 comments

Commentaires


bottom of page