top of page

সর্ষে - বাটার - ঝাল


সর্ষে - বাটার - ঝাল ! অবাক হয়েছেন তো ? এটা কি রান্না !!!........এটা আমাদের সবার খুব খুব প্রিয় এক লোভনীয় রান্না |......মিষ্টি মিষ্টি বাটা মাছের সর্ষে বাটা দিয়ে ঝাল | খেতে তো ভীষণই ভালো ,আর খুব খুব মুখরোচক এক মেনু | বাংলার বহু ঘরেই এই মাছের চাহিদা যেমন বেশি ,তেমনি বাটা মাছের সর্ষে ঝাল .......মেনুটাও বাঙালির বড়োই প্রিয় | এই মাছে কাঁটা বেশি, আর আমরা মোটামুটি সবাই জানি ,যে মাছে কাঁটা বেশি .......সেই মাছের মিষ্টি স্বাদ ও খুবই বেশি | গ্রামে - গঞ্জে মানুষজনের এই মাছ এতোই প্রিয় যে ............পেলে তারা রোজ খাবে ...আর তাদের বাড়ির যে কোনো আনন্দের অনুষ্ঠানে বাটা - মাছের সর্ষে ঝাল থাকবেই থাকবে | নয়তো প্রথমপাতে থাকবে ....গরম গরম ভাত ,কড়া করে বাটা মাছ ভাজা ...আর সঙ্গে একটু গাওয়া ঘি |



কড়া করে ভাজা মিষ্টি বাটা- মাছ খেতে দারুন লাগে ,অসাধারণ লাগে | আর সেই কড়া মাছ ভাজার সর্ষে - ঝাল .....কি দারুন খেতে হবে ...তা তো সবাই আমরা বুঝেই ফেলেছি |গরম গরম ভাতের সঙ্গে বাটা - মাছের - সর্ষে - ঝাল .......আহা - হা - হা ....ভাবতেই জিভে জল এসে যাচ্ছে | বড়োই মধুর ,বড়োই সুন্দর ,বড়োই টেস্টি টেস্টি | এই মেনু পাতে পড়লে,মন যেনো বলেই ফেলে ...না -না আর অন্য কিচ্ছু চাই না ........|


আজ আমার মাছের থলিতে খুব ছোট ছোট সাইজের ৩০০ - ৪০০ গ্রামের মতো বাটা মাছ | রুপোর মতো চক - চক করছে | দেখতে দারুন ! .....আর খেতে তো অবশ্যই খুব সুন্দর | কিন্তু কত যে উপকারী ,তা বোধহয় খাওয়ার স্বাদে ,অনেকসময় আমরা ভুলেই যাই | আমরা ভুলে গেলেও ....ভোলেনা প্রত্যেক বাড়ির সুগৃহিণীরা | সংসারকে সুস্থ রাখতে ,পরিবারের সবাইকে সুস্থ রাখতে ,আনন্দে রাখতে তাদের চেষ্টা আর চিন্তার ত্রুটি তারা রাখতে চায় না | আর তাইতো তাদের রান্নাঘরে নানা দিনে ,নানা পুষ্টিকর মেনু |



যে কোনো ছোট মাছই পুষ্টিগুণে ভরপুর | চোখের দৃষ্টি - শক্তি ঠিক রাখতে , হাড়ের গঠন মজবুত করতে , সহজে হজম হয়ে শরীরে ইমিউনিটি বাড়াতে .......ছোট ছোট টাটকা মাছগুলো বোধহয় তুলনাহীন |তাই পুষ্টিতে ভরা এই টাটকা ছোট মাছগুলো দেখে ,আনন্দ তো হলোই ,আর জিভের স্বাদের কথা ভেবে যেনো আরো বেশি আনন্দ হলো | রাঁধবো সর্ষে বাটায়....এই ছোটছোট বাটা মাছগুলোর ঝাল .....যা গরম ভাতে একেবারে জমিয়ে দেবে মধ্যাহ্ন ভোজের টেবিল |


রান্নার প্রস্তুতিতে মন দিলাম | মাছগুলো ভালো করে পরিষ্কার করে নিয়ে ,বার বার জলে ধুয়ে ,জল ঝরিয়ে নুন আর হলুদ মাখিয়ে রাখলাম | ৩-৪ চামচ মতো গোটা সর্ষে জলে ভিজিয়ে রাখলাম | কিছুক্ষন ভিজলে মিহি করে বাটা যাবে | রান্না শুরুর আগে বাড়ির অন্যান্য কাজগুলো ও কিছুটা সেরে নিলাম | শুরু হলো আজকের মধ্যাহ্ন ভোজের রান্নাবান্না ..............



উপকরণ :-

  • ছোট ছোট বাটা - ৪০০ গ্রাম ( ছাড়িয়ে ,পরিষ্কার করে ধুয়ে নিয়ে ,নুন আর হলুদ মাখানো )

  • গোটা সর্ষে - ৪ চামচ ( জলে বাজানো )

  • পাঁচফোড়ন - ১- ১.৫ চামচ

  • গোটা শুকনোলঙ্কা - ২-৩ টি ( একটু করে ফাটানো )

  • কাঁচালঙ্কা - ২-৩ টি সর্ষের সঙ্গে বাটার জন্য ,গোটা ৩-৪ টি ,অর্ধেক করে কাটা ৩-৪ টি ( ঝাল নিজের নিজের পছন্দ মতো )

  • লাল লঙ্কাগুঁড়ো - ১/৪ - ১/২ চামচ ( রং আর একটু তাকতাক স্বাদের জন্য )

  • হলুদ গুঁড়ো ১.৫ - ২ চামচ মতো

  • নুন - প্রয়োজনমতো

  • চিনি - প্রয়োজনমতো

  • সর্ষের তেল - প্রয়োজনমতো ( রান্নাটা অবশ্যই সর্ষের তেলেই হবে )


পদ্ধতি :-


রান্না শুরুর প্রথমেই মিক্সিতে নিয়ে নিলাম জল ঝরানো ভেজা সর্ষে ,২টো কাঁচালঙ্কা আর এক চিমটে নুন | মিহি করে বেটে রাখলাম | এবার গ্যাসে কড়াই চাপিয়ে দিলাম প্রয়োজনমতো সর্ষের তেল | তেল গরম হলে আঁচ কমিয়ে ,কয়েকটা নুন - হলুদ মাখানো বাটা মাছ কড়াইতে ছেড়ে দিলাম | আঁচ বাড়িয়ে কমিয়ে সমস্ত মাছ ভেজে তুলে রাখলাম | গ্যাস বন্ধ করলাম |



মাছ ভাজা হয়ে গেলে ,কড়াই পরিষ্কার করে গ্যাসে আবার কড়াই চাপলাম | প্রয়োজনমতো তেল দিলাম | তেল গরম হলে আঁচ কমিয়ে কড়াইতে দিলাম গোটা শুকনোলঙ্কা ,পাঁচফোড়ন ,২টি অর্ধেক করে চেরা কাঁচালঙ্কা | ফোড়নের

সুন্দর গন্ধ বার হতেই ,দিলাম মিক্সিতে বেটে রাখা সর্ষে ,প্রয়োজনমতো হলুদগুঁড়ো ,অল্প লাল লঙ্কাগুঁড়ো ,নুন আর কয়েকদানা চিনি | আঁচ বাড়িয়ে সমস্ত মিশ্রণ নেড়ে দিলাম |মিশ্রনের জল শুকিয়ে ,তেল বেরিয়ে আসতেই ,রসার পরিমান ভেবে জল দিলাম |



বেশি আঁচে রসা ফুটে উঠতেই ,ভাজা বাটা মাছগুলো কড়াইতে ছেড়ে দিলাম | রসা ফুটে একটু মাখো মাখো হয়ে এলে ,আঁচ কমিয়ে দেখে নিলাম রান্নার স্বাদ | ঠিক মনে হতেই ,কড়াইতে ছড়িয়ে দিলাম অল্প সর্ষের তেল আর কয়েকটা অর্ধেক করে কাটা কাঁচালঙ্কা | আঁচ বাড়িয়ে সর্ষে আর মাছ গায়ে গায়ে করে নিয়ে গ্যাস বন্ধ করে দিলাম | রান্নায় দিলাম ঢাকা |


গরম ভাতে নানা মেনু তো ছিলই ........কিন্তু বাটামাছের সর্ষে ঝাল ,যেনো আমাদের সবারই আজকের মধ্যাহ্ন -ভোজনকে এক স্পেশাল আর টেস্টি টেস্টি স্বাদে ভরিয়ে দিলো | সবাই দারুন খেলাম ,জমিয়ে খেলাম আর পেলাম সুন্দর স্বাদের অনেক আনন্দ |


সবাই ভালো খান ,ভালো থাকুন ,সুস্থ থাকুন আর থাকুন অনেক অ..........নেক আনন্দে |

7 views0 comments

Commentaires


bottom of page